1. paribahanjagot@gmail.com : pjeditor :
  2. jadusoftbd@gmail.com : webadmin :
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০১:২৬ অপরাহ্ন

জ্বালানির ২১০০ টাকা দিতে চায় না বিমান, ছাড় দেবে না জ্বালানি মন্ত্রণালয়

এভিয়েশন এন্ড ইমিগ্রেশন রিপোর্টার
  • আপডেট : রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০

জ্বালানির বকেয়ার টাকা দিতে রাজি নয় বিমান। বকেয়া পরিশোধ না করার জন্য সরকারের কাছে চিঠি দিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। কিন্তু প্রচলিত বিধি অনুযায়ী এই অর্থ মওকুফ করা সম্ভব নয়। জ্বালানি বিভাগও এই দাবি ছাড়তে নারাজ। বৃহস্পতিবার জ্বালানি বিভাগে অনুষ্ঠিত বৈঠকে পাওনা আদায়ে কোনও সমঝোতায় না পৌঁছাতে পেরে শেষ পর্যন্ত একটি কমিটি গঠন করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। কমিটির রিপোর্ট পেলে পরবর্তীতে বৈঠক করে আবারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কমিটিতে জ্বালানি বিভাগ ছাড়াও বিপিসি, পদ্মা অয়েল, বেবিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রতিনিধি থাকবেন।

জ্বালানি বাবদ বিমানের কাছে দুই হাজার একশ’ কোটি টাকার পাওনা আদায়ে বৃহস্পতিবার বৈঠক হয়। বৈঠকে জ্বালানি বিভাগ ছাড়াও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এ ব্যাপারে জ্বালানি সচিব আনিছুর রহমান বলেন, ‘বিমানের পাওনার বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে বিমান ‘রাইট অফ’ করার জন্য চিঠি দিয়েছে। মন্ত্রণালয় এই টাকা ‘রাইট অফ’ করতে পারে না। পদ্মা অয়েল কোম্পানিও করতে পারে না। করলে তারা চলবে কীভাবে। পদ্মাকে বিমান অথবা অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে টাকা দিতেই হবে। এটা বাড়তেই থাকবে না দেওয়া পর্যন্ত। এই বকেয়া আজকের না। মূলত ১০ বছর আগের বকেয়া। ২০০৯-২০১০ সালে এই বকেয়া হয়েছিল।’ সচিব বলেন, ‘বিমানের পাওনা ছাড়াও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অধীনে একটা ডিপো আছে। সেখানে পদ্মা জেট অয়েল সরবরাহ করে। ভাড়াসহ আরও বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। একটা কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। আরও কিছু দেনা-পাওনা ছিল। কমিটি রিপোর্ট করলে পরে আবারও বৈঠক হবে।’

বৈঠক সূত্র জানায়, বিমান এই টাকা মওকুফ করে দেওয়ার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে। কিন্তু প্রচলিত নিয়মে কোনও কোম্পানির পাওনা সরকার মওকুফ করতে পারে না। এই টাকা মওকুফের বদলে সরকার নিজস্ব তহবিল থেকে বিমানকে ভর্তুকি বা ঋণ হিসেবে দিতে পারে।

বৈঠক সূত্র আরও জানায়, বিমানের তরফে বৈঠকের শুরুতেই বলা হয়, পদ্মা অয়েলের এই পাওনা ২০১৮-১৯ অর্থবছরের আগের। ফলে এই দেনা তাদের পক্ষে পরিশোধ করা সম্ভব নয়। বিপিসির তরফ থেকে বৈঠকে জানানো হয়, বিমান বরাবরই লোকসানের কথা বলে দেনা পরিশোধ করেনি। তবে এখন লাভের ধারায় ফিরলেও বিমান এই বকেয়া পরিশোধের কোনও উদ্যোগ নেয়নি; বরং বিমানের সঙ্গে একাধিক সমঝোতা বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© 2020, All rights reserved By www.paribahanjagot.com
Developed By: JADU SOFT