1. paribahanjagot@gmail.com : pjeditor :
  2. jadusoftbd@gmail.com : webadmin :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বৈশ্বিক বিমান সংস্থাগুলোর মুনাফা হবে তিন হাজার কোটি ডলার উত্তরা মোটর্স বাজারে এনেছে ইসুজুর দুই মডেলের বাস বাংলাদেশীদের জন্য ভ্রমণ ফি কমাল ভুটান পরিবহন চাদাবাজি : সিএনজিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ড দখল নিয়ে সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হবিগঞ্জ নিহত ৩, আহত ৫০ গতিসীমা নিয়ে বিতর্ক : শহরে বাইকের সর্বোচ্চ গতি ৩০ কিলোমিটার, মহাসড়কে ৫০ কর্মীরা গণহারে অসুস্থ, এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের ৯০ ফ্লাইট বাতিল মগবাজার রেল গেটে ট্রেনের ধাক্কায় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের গাড়ি চুরমার নতুন দুটি বিদেশি এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম শুরু আগামী মাসে : অক্টোবরে চালু হচ্ছে থার্ড টার্মিনাল চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ৯ মাসে ৪৩৫৫ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি ইউএস বাংলার বহরে যুক্ত হলো দ্বিতীয় এয়ারবাস ৩৩০

নির্মাণকাজের গতি বেড়ে যাওয়ায় বিটুমিনের বাজার উর্ধ্বমুখি

ওমর ফারুক
  • আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০

এক মাসে ড্রামপ্রতি বিটুমিনের দাম বেড়েছে ১৫০০টাকা
বিটুমিনের দাম গত মাসে কারখানা পর্যায়ে ড্রামপ্রতি এক হাজার ৫০০ টাকা বেড়ে গেছে। শুকনো মৌসুমে নির্মাণ কাজ বৃদ্ধি এবং করোনা সংক্রমণ সত্ত্বেও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পুনরায় শুরু করার কারণে দাম বেড়েছে বলে জানা গেছে। ব্যবসায়ীদের মতে, ইরান থেকে আমদানি করা বিটুমিনের দাম গত মাসে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। বর্তমানে, ৮০-১০০ গ্রেডের ইরানী বিটুমিন প্রতি ড্রাম পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৬হাজার ৭০০ টাকায়। গত
নভেম্বরের শেষে এর দাম ছিল পাঁচ হাজার টাকারও কম। অর্থাৎ এক মাসে ইরানী বিটুমিনের পাইকারি দাম ড্রামপ্রতি ১১০০ টাকা বেড়েছে।
জানা গেছে, নভেম্বর পর্যন্ত বেসরকারি কারখানায় উত্পাদিত ৬০০-৭০০ গ্রেডের বিটুমিন প্রতি ড্রাম ৬হাজার টাকায় বিক্রি হতো, যা বর্তমানে ৭ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
বেসরকারি সংস্থাগুলির মধ্যে পিএইচপি গ্রুপের উত্পাদিত বিটুমিনের ভালো বাজার রয়েছে বলে জানিয়েছেন এই খাতের ব্যবসায়ীরা। আমদানিকৃত বিটুমিনের দাম বাড়ানো সত্ত্বেও রাষ্ট্রাত্ব বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) এর অধীনস্থ সংস্থা ইস্টার্ন রিফাইনারিতে উত্পাদিত বিটুমিনের দাম বাড়তি চাহিদা থাকা সত্ত্বেও স্থিতিশীল ছিল। ইস্টার্ন রিফাইনারিতে বর্তমানে পরিশোধিত বিটুমিন বিক্রি হচ্ছে ৬হাজার ৩০০ টাকায়। এটি দীর্ঘদিন ধরে এই দামে বিক্রি করা হচ্ছে।
তবে, সরকারি নিয়োজিত ঠিকাদাররা, যাদের চাহিদার ভিত্তিতে কারখানা থেকে বিটুমিন কেনার কথা, তারা অভিযোগ করেছেন যে তাদের নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে বিটুমিন সংগ্রহ করতে হয়। তারা বলেছেন, যদিও নির্ধারিত দাম ৬হাজার ৩০০ টাকা, তবুও সময়মতো পণ্যটি পেতে আমাদের ইস্টার্ন রিফাইনারিকে অতিরিক্ত ১,০০০ থেকে ১,৫০০ টাকা বাড়তি দিতে হয়।
চট্টগ্রামভিত্তিক বিটুমিন আমদানিকারক হাসান অ্যান্ড ব্রাদার্সের মালিক মোহাম্মদ হাসান বলেছেন, সরকার কর্তৃক ঘোষিত লকডাউনের কারণে মার্চ মাসে সারাদেশে রাস্তা নির্মাণ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরে বিটুমিনের বিক্রয় উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে। এসময় আমরা আমদানি করা বিটুমিনের কারণে লোকসানের প্রহর গুণছি। পরে অক্টোবর মাসে নির্মাণ কাজ আবার শুরু হওয়ায় এবং কাজে গতি ফিরে আসায় বিটুমিনের চাহিদা বাড়তে শুরু করে। ফলস্বরূপ, বিটুমিনের দামও গত মাসে বেড়েছে। দাম বৃদ্ধির ফলে আমদানিকারকরা করোনা মহামারীর সময়ের ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারছেন।
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিপিসির বিক্রি হওয়া বিটুমিন চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠিত ইস্টার্ন রিফাইনারির কারখানায় উত্পাদিত হয়। আমদানি করা কাঁচামাল থেকে ইস্টার্ন রিফাইনারির উত্পাদিত বিটুমিন দেশের কোনও বেসরকারি সংস্থার উত্পাদিত বিটুমিনের তুলনায় গুণমানের তুলনায় অনেক ভাল।
বিটুমিন ব্যবসায়ীরা জানান, ৮০-১০০ গ্রেডের আমদানি করা বিটুমিন বেশিরভাগ দেশে নির্মাণ কাজের জন্য ব্যবহৃত হতো। তবে সড়ক ও জনপথ বিভাগসহ সরকারি সংস্থা ইরান থেকে আমদানি করা এই রকম বিটুমিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। কারণ, এটি ব্যবহার করে নির্মিত রাস্তাগুলো অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এই কারণে গত কয়েক বছরে ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিনের ব্যবহার হ্রাস পেয়েছে। তবে, গত এক বছরে ইরানি বিটুমিনের ব্যবহার আবার বেড়েছে। যেহেতু করোনার কারনে বন্ধ হয়ে যাওয়া নির্মাণ কাজে গতি এসেছে। এছাড়া বাজারে ইস্টার্ন রিফাইনারির বিটুমিনের ঘাটতির কারণে বেসরকারি কারখানাগুলোর পরিশোধিত বিটুমিনের চাহিদা অনেক বেড়েছে।
চট্টগ্রামের বিটুমিন ব্যবসায়ী এবং এমএসআর জামান এন্টারপ্রাইজের মালিক এস এম কামরুজ্জামান বলেছেন, গত মাসে আমদানি করা ও পরিশোধিত বিটুমিনের পাইকারি দাম বেড়েছে ৭০০ থেকে ১৭০০ টাকা প্রতি ড্রামে। প্রতি ড্রাম ইরানি বিটুমিনের দাম এক হাজার ৫০০ থেকে এক হাজার ৭০০ টাকা বেড়েছে। কারখানা পর্যায়ে ড্রাম প্রতি পরিশোধিত বিটুমিনের দাম ৭০০টাকা বাড়ানো হয়েছে।
তিনি বলেন, শুকনো মৌসুমে বিটুমিনের চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে আমদানিকারক ও বেসরকারি সংস্থাগুলো তাদের পণ্যের দাম বাড়িয়েছে। ইস্টার্ন রিফাইনারিতে উত্পাদিত বিপিসির বিটুমিন সাধারণত সরকারী-নিয়োগকৃত ঠিকাদারদের জন্য বরাদ্দ করা হয় এবং বেসরকারি কারখানায় উত্পাদিত এবং ইরান থেকে আমদানি করা বিটুমিন বাজারজাত ও বাইরে বিক্রি করা হয়।

শেয়ার করুন

One response to “নির্মাণকাজের গতি বেড়ে যাওয়ায় বিটুমিনের বাজার উর্ধ্বমুখি”

  1. MD babu says:

    ইরানি ভিটামিন বর্তমান প্রাইস কত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© 2020, All rights reserved By www.paribahanjagot.com
Developed By: JADU SOFT