1. paribahanjagot@gmail.com : pjeditor :
  2. jadusoftbd@gmail.com : webadmin :
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০২:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সম্পাদক ওসমান আলীর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ, অপসারণ দাবি বৈশ্বিক বিমান সংস্থাগুলোর মুনাফা হবে তিন হাজার কোটি ডলার উত্তরা মোটর্স বাজারে এনেছে ইসুজুর দুই মডেলের বাস বাংলাদেশীদের জন্য ভ্রমণ ফি কমাল ভুটান পরিবহন চাদাবাজি : সিএনজিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ড দখল নিয়ে সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হবিগঞ্জ নিহত ৩, আহত ৫০ গতিসীমা নিয়ে বিতর্ক : শহরে বাইকের সর্বোচ্চ গতি ৩০ কিলোমিটার, মহাসড়কে ৫০ কর্মীরা গণহারে অসুস্থ, এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের ৯০ ফ্লাইট বাতিল মগবাজার রেল গেটে ট্রেনের ধাক্কায় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের গাড়ি চুরমার নতুন দুটি বিদেশি এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম শুরু আগামী মাসে : অক্টোবরে চালু হচ্ছে থার্ড টার্মিনাল চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ৯ মাসে ৪৩৫৫ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি

রাজধানী ছাড়তেই সীমাহীন ভোগান্তিতে ঘরমুখো মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : শনিবার, ৯ জুলাই, ২০২২

► বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাশের মহাসড়কে ২০ কিমি যানজট
► ২০ কিমি যানজট ঢাকা-আরিচা মহাসড়কেও
► ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কেও দুর্ভোগ
► যাত্রীর চাপ কমলাপুর স্টেশনেও

ঈদে ঘরে ফিরতে বাহন না পাওয়া এবং যানজটের ভোগান্তিতে পড়ছে মানুষ। এত কিছুর পর প্রিয়জনের কাছে পৌঁছলে সব ক্লান্তি মুছে যাবে সবার। ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেবে স্বজন, বন্ধু ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে।
সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আগে থেকেই ধারণা করছিলেন, বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছেড়ে বাড়ির পথ ধরবে। এর প্রভাব পড়বে সব মহাসড়ক, রেল ও নৌপথে। হয়েছেও তাই। গতকাল শুক্রবার ছিল ঈদ যাত্রার চতুর্থ দিন। গতকাল দেশের অনেক মহাসড়কে যানজটে পড়ে যাত্রীরা। রেলে যাত্রীদের চাপে যেন তিলধারণের ঠাঁই নেই। লঞ্চেও ছিল প্রায় একই পরিস্থিতি। ফেরিঘাটেও গাড়ির দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়েছে।
এবার যাত্রীদের ভোগান্তির শুরু একেবারে রাজধানী থেকেই। ঢাকা ছাড়ার জন্য বাস পাচ্ছে না হাজারো মানুষ। যানবাহন না পেয়ে ট্রাক, পিকআপ ভ্যানে বাড়ি যাচ্ছে কেউ কেউ। গুনতে হচ্ছে কয়েক গুণ বেশি ভাড়া।
রাজধানী ছাড়তেই বড় কষ্ট : গতকাল সকাল সাড়ে ১০টা। গুলিস্তান এলাকায় মেয়র হানিফ উড়ালসেতুর নিচে ধামরাইয়ের এক বাসে বসে আছেন সবুজ রহমান। এক ঘণ্টা ৪০ মিনিটে তিনি পাঁচ মিনিটের হাঁটা পথের দূরত্ব পাড়ি দিয়েছেন। তিনি বলেন, গুলিস্তান থেকে বাড়ি যাওয়ার বাসে উঠব। কিন্তু এখান থেকেই বাস নড়ছে না। হাঁটলে হয়তো ১৫ মিনিটে গুলিস্তান চলে যেতাম। সঙ্গে বড় বড় কয়েকটি ব্যাগ আর বাচ্চা না থাকলে হেঁটেই চলে যেতাম।
গুলিস্তান, গাবতলী ও সায়েদাবাদ এলাকায় বাসের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। বাসের আসন নিশ্চিত করার জন্য নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। কখনো কখনো সেই ভাড়া দ্বিগুণেরও বেশি হয়ে যাচ্ছে। এদিকে আমিনবাজার থেকে ট্রাক, পিকআপে করে ঢাকা ছাড়ছে অনেকে। সেখানেও নেওয়া হচ্ছে ‘গলাকাটা’ ভাড়া।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© 2020, All rights reserved By www.paribahanjagot.com
Developed By: JADU SOFT