1. paribahanjagot@gmail.com : pjeditor :
  2. jadusoftbd@gmail.com : webadmin :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
দক্ষিণ কোরিয়া থেকে মিটারগেজ লাল-সবুজ ১৪৭টি কোচ দেশে এসে গেছে গত বছর চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে গাড়ি আমদানি কমেছে ২২ শতাংশ মোংলা বন্দর বিষয়ক স্থায়ী কমিটি এবং বন্দর ব্যবহারকারী গাড়ি আমদানিকারকদের যৌথ সভা মোটর সাইকেল সংযোজন ও আমদানিকারকদের সভা অনুষ্ঠিত অটোমোবাইল সংস্থাগুলোকে একত্র করতে কাজ করবে সাফ ট্যুরিজম ফেয়ার : টিকিটে ১৫ শতাংশ ছাড় দেবে বিমান বাংলাদেশ মেট্রোরেল উত্তরা থেকে টঙ্গী পর্যন্ত সম্প্রসারণের সমীক্ষা চলছে চলন্ত বিমানে ক্রু সদস্যকে ‘মদ্যপ’ যাত্রীর কামড়, জরুরি অবতরণ, যাত্রী গ্রেপ্তার ভাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত কাল থেকে উত্তরা-মতিঝিলে মেট্রোরেল চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত : সাপ্তাহিক বন্ধ শুক্রবার

দিল্লির সড়কে ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ

বাণিজ্য প্রতিবেদক
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

ভারতের রাজধানী দিল্লির সড়কে নিষিদ্ধ হয়েছে ভাড়ায় যাত্রী বহনকারী মোটরবাইক। এই নির্দেশে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে উবার, ওলা ও র‌্যাপিডোর মতো অ্যাপ ভিত্তিক সংস্থা ও চালক। খবর বিবিসি।
এক সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ব্যক্তিগত দুই চাকার গাড়িতে ভাড়ায় যাত্রী বহন ভারতীয় আইনের লঙ্ঘন। এই সংশ্লিষ্ট ডিজিটাল সেবা প্রদানকারীর এক লাখ রুপি পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। তবে বিষয়টি নিয়ে কোম্পানিগুলো এখনো কোনো মন্তব্য করেনি।
অতিরিক্ত ট্রাফিক জ্যামের শহরটিতে ধীরগতির পরিবহনের বদলে সাশ্রয়ী মূল্যের মোটরবাইক সেবা জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। হাজার হাজার চালক ব্যক্তিগত যান ব্যবহার করে এই সেবার সঙ্গে যুক্ত। তবে দেশটির মোটরযান আইন অনুযায়ী, বাণিজ্যিক কাজে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করা যাবে না।
নিষেধাজ্ঞায় পড়া চালকদের মন্তব্য প্রকাশ করেছে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। তারা বললেন, অতিরিক্ত আয় ছাড়া টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়বে।
এবারই প্রথম নয়, আগেও ভারতে একই ধরনের আইনি জটিলতা তৈরি হয়। গত জানুয়ারিতে মহারাষ্ট্র সরকার র‌্যাপিডো নামের সংস্থাকে লাইসেন্স দিতে অস্বীকার করে। তখন বলা হয়, তাদের লাইসেন্সিং, নিরাপত্তা ও ভাড়ার কাঠামোতে কোনো আইনি নির্দেশিকা নেই।
বর্তমানে ভারতে ভাড়ায় চালিত বাইক খাতের অবস্থা রমরমা। অ্যালাইড মার্কেট রিসার্চের গত বছরের প্রতিবেদন অনুসারে, দেশটিতে ওই খাতের বাজারের মূল্য ছিল ৫ কোটি ডলারের বেশি। ২০২০ সালের মধ্যে তা ১৫০ কোটি ডলারে পৌঁছাবে। অবশ্য একই প্রতিবেদনে আইনি সমস্যা ও গণপরিবহন খাত থেকে আসা প্রতিবন্ধকতা নিয়ে সতর্ক করে দেয়া হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© 2020, All rights reserved By www.paribahanjagot.com
Developed By: JADU SOFT